× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার

ভারতে আক্রান্ত চার লাখ ছাড়ালো

এক্সক্লুসিভ

মানবজমিন ডেস্ক | ২২ জুন ২০২০, সোমবার, ৮:০৬

ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ছাড়ালো। দেশটিতে সংক্রমণের গতি প্রতিনিয়ত রেকর্ড ভাঙছে। যদিও উঠে গেছে লকডাউন, শিথিল করা হয়েছে বাধা-নিষেধও। চালু হওয়ার অপেক্ষায় আছে স্থানীয় ট্রেন, মেট্রো এবং আন্তর্জাতিক বিমান। এ ছাড়া অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড প্রায় পুরোটাই চালু হয়ে গেছে। ওয়ার্ল্ডোমিটার ওয়েবসাইট বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ পরিস্থিতি আপডেট করে যাচ্ছে। এতে দেখা যায়, রোববারই ৪ লাখ আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে ভারতে। ভারত সরকার জানিয়েছে, শনিবার ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ১৫ হাজার ৪১৩ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন।
২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের হিসাবে এটি একটি রেকর্ড। ভারতে একদিনে এত সংখ্যক মানুষ এর আগে আক্রান্ত হননি। ফলে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে এখন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ১০ হাজার ৪৬১ জনে। আক্রান্তের পাশাপাশি মৃত্যুও বাড়ছে ক্রমাগত। ভারতীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, ওই ২৪ ঘণ্টায় করোনার থাবায় মৃত্যু হয়েছে ৩০৬ জনের। মৃতের সংখ্যা এ নিয়ে বেড়ে দাঁড়ালো ১৩ হাজার ১৫৪ জনে। এর মধ্যে সব থেকে বেশি মারা গেছে মহারাষ্ট্রে। সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৯৮৪ জনের। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে রাজধানী দিল্লিতে মৃত্যু ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে। করোনায় ভারতের রাজধানীতে মারা গেছেন মোট ২ হাজার ১১২ জন। তৃতীয় স্থানে আছে গুজরাট। সেখানে মারা গেছেন ১ হাজার ৬৩৮ জন। এ ছাড়া, অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে তামিলনাড়ুতে ৭০৪ জন, পশ্চিমবঙ্গে ৫৪০ জন, উত্তরপ্রদেশে ৫০৭ জন, মধ্যপ্রদেশে ৫০১ জন, রাজস্থানে ৩৩৭ জন, তেলেঙ্গানাতে ২০৩ জন, হরিয়ানায় ১৪৯ জন, কর্ণাটকে ১৩২ জন ও অন্ধ্রপ্রদেশে ১০১ জন প্রাণ হারিয়েছেন।
উল্লেখ্য, গত ৩০শে জানুয়ারি প্রথম করোনা রোগী ধরা পড়ে ভারতে। চীনের উহান থেকে এসেছিলেন তিনি। তবে পরবর্তীতে বিভিন্ন উৎস থেকে সংক্রমিত হতে শুরু করে ভাইরাসটি। দ্রুতই বাড়ে সংক্রমণের গতি। কেরালার কমিউনিস্ট সরকার রাজ্যের অভ্যন্তরে করোনা পরিস্থিতি সমপূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। এখনো কেরালা মডেল সমাদৃত হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। কিন্তু অন্য রাজ্যগুলোতে করোনাভাইরাস বিপর্যয় সৃষ্টি করেছে। প্রথম সংক্রমণ থেকে ভারতে মোট আক্রান্ত চার লাখে পৌঁছাতে সময় লেগেছে ১৪৩ দিন। আক্রান্তের গণ্ডিকে লক্ষ হিসাবে ভাগ করলে দেখা যাবে, শূন্য থেকে এক লাখে পৌঁছাতে সময় লাগে ১১০ দিন। কিন্তু এক লাখ থেকে সংক্রমণ দু’লাখে পৌঁছাতে সময় নেয় মাত্র ১৫ দিন। পরের এক লাখ বাড়ে ১০ দিনে। এবার ৪ লাখ ছাড়ালো মাত্র ৮ দিনে। এটি ভারতের জন্য আতঙ্কের খবর। আবার দ্রুত সুস্থও হয়ে উঠছেন আক্রান্তরা। বর্তমানে ভারতে সুস্থ হয়ে ওঠা করোনা রোগীর সংখ্যা সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যার চেয়ে বেশি। মোট আক্রান্তের অর্ধেকেরও বেশি সুস্থ হয়ে উঠেছেন ইতিমধ্যে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩ হাজার ৯২৫ জন সুস্থ হয়েছেন। এটিও একদিনে সর্বোচ্চ সুস্থ হওয়ার ঘটনা। এ নিয়ে ভারতে ২ লাখ ২৭ হাজারের বেশি মানুষ সুস্থ হয়ে উঠলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর