× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৩ আগস্ট ২০২০, বৃহস্পতিবার

ফেনীতে করোনায় চিকিৎসক, নারী ও ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু

বাংলারজমিন

ফেনী প্রতিনিধি | ২ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১১:৪৪

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ফেনীর বাসিন্দা এক চিকিৎসক, নারী ও এক ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। বুধবার বিভিন্ন সময়ে করোনা আক্রান্ত ডা. রুহুল আমিন (৭৮), নাছিমা আক্তার রিয়া (৫৩) ও কামরুল ইসলাম (৪৫) ঢাকা ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

এদের মধ্যে ফেনীর দাগনভূঞার বাসিন্দা ঢাকার আল রাজী হাসপাতাল প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ডা. রুহুল আমিন রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে মারা যান। ফেনী সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফাহিম হোসেনের মা নাছিমা আক্তার রিয়া রাজধানীর গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে মারা যান। ফেনীর পাঁচগাছিয়ার বাসিন্দা এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বিএমএ ফেনী জেলা সভাপতি ডা. সাহেদুল ইসলাম কাওসার জানান, ঢাকার ফার্মগেট আল রাজী হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক এমডি বিশেষজ্ঞ চক্ষু সার্জন প্রফেসর ডা. রুহুল আমিন বুধবার বিকেলে রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় স্বজনরা তাকে আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ডা. রুহুল আমিন।


ডা. রুহুল আমিনের মরদেহ বুধবার রাতে তাঁর গ্রামের বাড়ি ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়। এর আগে বাড়ির সামনে স্বল্প পরিসরে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

ফেনীর ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. এসএসআর মাসুদ রানা জানান, ফেনী সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফাহিম হোসেনের মা নাছিমা আক্তার রিয়া বুধবার দুপুরে রাজধানীর গ্রীণ লাইফ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এর আগে নাছিমা আক্তার রিয়ার করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে গত ২১ জুন। প্রথমে ঢাকার বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিলেও শারিরীক অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত ২৫ জুন ধানমন্ডির গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নাছিমা আক্তার রিয়ার মরদেহ বুধবার সন্ধ্যায় তাঁর গ্রামের বাড়ি ফেনী সদর উপজেলার কালিদহ ইউনিয়নের ভালুকিয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়। এর আগে বাড়ির সামনে স্বল্প পরিসরে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে নিহত নাছিমা আক্তার রিয়ার ছেলে ডা. ফাহিম হোসেনও করোনা আক্রান্ত ছিলেন। গত ১০ মে তার করোনা শনাক্ত হল চিকিৎসা শেষে জুনের প্রথম সপ্তাহে তিনি কর্মস্থলে যোগদান করেন।

অপরদিকে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বুধবার বিকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক নরসিংদী শাখায় কর্মরত ছিলো।

কামরুলের চাচা এয়াকুব আলী খোকন জানান, করোনা পজেটিভ কামরুল ইসলামের জ্বর, গলা ব্যাথা ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় সোমবার ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানন্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বিকেলে তার মৃত্যু হয়।

কামরুল ইসলামের মরদেহ বুধবার রাতে তাঁর গ্রামের বাড়ি ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের জগইরগাঁও গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়। এর আগে বাড়ির সামনে স্বল্প পরিসরে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর