× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১০ আগস্ট ২০২০, সোমবার

জুড়ীতে পোল্ট্রি খামার ভাংচুরের ঘটনা তদন্তে বিভাগীয় কমিশনার

বাংলারজমিন

জুড়ী (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ২ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৫:১৫

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার আমতৈল গ্রামের বন্ধু পোল্ট্রি-খামার ভাংচুর মামলায় অভিযুক্ত জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.এ মোঈদ ফারুকের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি সরজমিন তদন্ত করেছেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত তদন্তে বাদী-বিবাদী ও উভয়পক্ষের স্বাক্ষীগণের জবানবন্দি গ্রহণ করেন তিনি। এ সময় উভয়পক্ষের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার কর্মীবৃন্দরা উপস্থিত থাকলেও সভাকক্ষে বাদী-বিবাদী ও স্বাক্ষীগণ ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। তবে তদন্ত শুনানীর শেষ পর্যায়ে কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যান সভাকক্ষে প্রবেশ করলেও তাদের বাধা দেয়া হয়নি। শুনানী শেষে বিভাগীয় কমিশনার ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং ক্ষতিগ্রস্ত খামারটি পরিদর্শন করেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিভাগীয় কমিশনার ‘মানবজমিন’কে বলেন, তদন্ত করেছি এখন মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠাবো। এটাই আমার কাজ। উল্লেখ্য, গত ৩০শে এপ্রিল ওই গ্রামে প্রতিষ্ঠিত আড়াই হাজার লেয়ার মোরগের ‘‘বন্ধু পোল্ট্রি খামারটি” উপজেলা চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে একদল লোক ভাংচুর ও লুটপাট চালালে পরদিন আমার মালিক দীনবন্ধু সেন বাদী হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানকে প্রধান আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়।
এরই প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ওই ঘটনাটির তদন্ত করেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর