× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার

এএফসি কাপে বসুন্ধরার সঙ্গী কে?

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৪ জুলাই ২০২০, শনিবার, ৮:০৯

চলমি মৌসুমে এএফসি কাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলছে বসুন্ধরা কিংস। গত মৌসুমে ফেডারেশন কাপ জিতে ইতিমধ্যে আগামী মৌসুমেও একটি স্লট প্রায় নিশ্চিত করে নিয়েছে তারা। ২০২১ এএফসি কাপের জন্য নতুন করে ক্লাব লাইসেন্সিং শর্ত পূরণ করে খেলতে আগ্রহী ক্লাবটি। রানার্সআপ রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিও এএফসি কাপ খেলার আগ্রহ প্রকাশ করে আবেদন করেছে। এই তালিকায় আছে আরো সাত ক্লাব। ক্লাবগুলো হচ্ছে আবাহনী লিমিটেড, মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড, শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র, সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব, শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব, ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও উত্তর বারিধারা ক্লাব।
ফুটবল মৌসুমের বাকি অংশ বাতিল ঘোষণা করায় ২০২১ সালের এএফসি কাপে বাংলাদেশের একটি কোটা নষ্ট হওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে। ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস খেলার সুযোগ পাবে। লীগ সম্পূর্ণ না হওয়ায় দ্বিতীয় দলের অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।
যে দেশের ঘরোয়া ফুটবল মৌসুম যেভাবেই ইতি টানা হোক না কেন, এএফসি সবকিছুই অবহিত। পরিস্থিতি বিবেচনা করে তারা ২০২১ সালের এএফসি কাপের জন্য বিশেষ ছাড় দেয়ার কথাও ভাবছে। ২০২১ সালের এএফসি কাপ নিয়ে দেশগুলোর ভাবনা এবং পরিকল্পনা কি সে বিষয়টি জানতেও চেয়েছে এশিয়ার ফুটবলের অভিভাবক সংস্থাটি। তবে এএফসি কাপ খেলার যোগ্যতা কেবল যে ফেডারেশন কাপ বা প্রিমিয়ার লীগ চ্যাম্পিয়ন হওয়া তা কিন্তু নয়। আরেকটি শর্ত হচ্ছে এএফসির লাইসেন্সকৃত ক্লাব হওয়া। বসুন্ধরা কিংস আর আবাহনী চলমান এএফসি কাপে লাইসেন্সকৃত ক্লাব হিসেবেই অংশ নিয়েছে। ২০২১ সালের জন্য এএফসি লাইসেসিংয়ের কথা বললে বাফুফে প্রিমিয়ার লীগের ১৩ দলকেই চিঠি দিয়েছিল। বুধবার ছিল আবেদনের শেষ দিন। ৯টি ক্লাব এবার এএফসি লাইসেসিং করার আগ্রহ প্রকাশ করে বাফুফের কাছে আবেদন করেছে। যে ক্লাবগুলো কোর্স সম্পন্ন করবে, তাদের মধ্যে থেকে যারা ভালো দল গঠন করে অংশ নিতে পারবে- এমন একটি ক্লাবের নাম এএফসি কাপের জন্য পাঠাবে বাফুফে।
এএফসির লাইসেন্স করা ক্লাবগুলোর সঙ্গে বসে আলোচনা ও সমঝোতার মাধ্যমেও দ্বিতীয় দল নির্বাচন করতে পারে  দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থাটি। যদি ক্লাব লাইসেন্সিয়ের শর্ত পুরনের পর ফেডারশন কাপকেই মানদণ্ড ধরা হয় তবে সবচেয়ে এগিয়ে রার্নাসআপ রহমতগঞ্জ এমএফএস। তারা এএফসি কাপ খেলতে আগ্রহী এমনটাই জানিয়েছেন রহমতগঞ্জ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমেদ সবুজ, ‘ভালো একটা দল গড়ে আমরা এএফসি কাপ খেলতে চাই।’ গতবছর এএফসির লাইসেন্সিং প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছিলো বসুন্ধরা কিংস, ঢাকা আবাহনী ও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। ফলে লাইসেন্সের শর্ত পূরণ করার ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে তারাও। সুতরাং ফেডারেশন কাপ রানার্সআপ রহমতগঞ্জ কোনো কারণে ব্যর্থ হলে কপাল খুলতে পারে আবাহনী বা সাইফের। দলের শক্তিমত্তার বিষয়টিও বিবেচনায় রাখবে ফেডারেশন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর