× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ২ রোহিঙ্গা নিহত

বাংলারজমিন

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | ৭ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার, ৮:০৩

টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের হোয়াব্রাং পয়েন্টে মাদকের চালান নিয়ে অনুপ্রবেশকালে সীমান্তরক্ষী বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দু’রোহিঙ্গা মাদক কারবারী নিহত হয়েছে। এ সময় বিজিবির দুই সদস্য আহত হয়েছে বলে দাবি করে বিজিবি। নিহতরা হলেন- উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ৫নং ক্যাম্পের ব্লক-জি-২/ই এর শেড নং-৪৫১২৮৪ এর বাসিন্দা মো. শফির পুত্র মো. আলম (২৬) এবং ২নং বালুখালী ১৮নং ক্যাম্পের ব্লক নং- কে/৩ এর বাসিন্দা মো. এরশাদ আলীর পুত্র মো. ইয়াছিন (২৪)। টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফয়সাল হাসান খান জানান, রোববার দিবাগত মধ্যরাতে হ্নীলা বিওপির একটি বিশেষ টহল দল হোয়াব্রাং সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে মাদকের চালান খালাসের সংবাদ পেয়ে অভিযানে যায়। কিছুক্ষণ পর ৩/৪ জন লোককে বস্তা নিয়ে নাফ নদী থেকে কিনারায় আসতে দেখে বিজিবি তাদের চ্যালেঞ্জ করলে মাদক কারবারী গ্রুপের সদস্যরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এ সময় ল্যান্স নায়েক মো. আব্দুল কুদ্দুস এবং নায়েক শাকের উদ্দিন আহত হলে বিজিবি জওয়ানেরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এতে মাদক কারবারীদের কয়েকজন গুলি ছুড়তে ছুড়তে কেওড়া বাগান হয়ে পালিয়ে যায়। পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা, ১টি চায়না পিস্তল ও তাঁজা ২ রাউন্ড কার্তুজসহ আহত বিজিবি এবং গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারীদের দ্রুত চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়।
গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যায়। তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারার পৃথক আইনে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর