× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ছাড়ার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু যুক্তরাষ্ট্রের

শেষের পাতা

মানবজমিন ডেস্ক | ৯ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৯:১৩

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার সংস্থাটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে নোটিশ পাঠিয়েছে মার্কিন  প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন। তীব্র সমালোচনার সত্ত্বেও, করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে বিশ্বের স্বাস্থ্য সংকটে নেতৃত্বদানকারী সংস্থাটি ছেড়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এ খবর দিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।
খবরে বলা হয়, গত মে মাসে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিরুদ্ধে করোনাভাইরাস নিয়ে তথ্য আটকে রাখার অভিযোগ আনেন ট্রাম্প। তিনি সংস্থাটিকে ‘চীনঘেঁষা’ বলেও দাবি করেন। যদিও নিজের অভিযোগের স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ সরবরাহ করেননি তিনি। অবশেষে নিজের ঘোষণাকে আনুষ্ঠানিক রূপ দিতে যাচ্ছেন তিনি। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরাঁ বরাবর এ বিষয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক কর্মকর্তা জানান, যুক্তরাষ্ট্র জাতিসংঘ মহাসচিবের কাছে প্রত্যাহারের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক নোটিশ পাঠিয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, আগামী বছরের ৬ই জুলাই থেকে এ প্রত্যাহার কার্যকর হবে।
ট্রাম্পের ডেমোক্র্যাট প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেন জানিয়েছেন, তিনি আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় এলে যুক্তরাষ্ট্রকে ফের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যাবেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য মজবুত করতে সক্রিয় থাকে তাহলে আমেরিকানরাও বেশি নিরাপদ থাকবে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমার প্রথম দিনে, আমি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় ফের যোগ দেবো ও বৈশ্বিক পর্যায়ে আমাদের নেতৃত্ব পুনঃস্থাপন করবো।
প্রসঙ্গত, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সবচেয়ে বড় দাতা যুক্তরাষ্ট্র। সদস্যপদ ফি ও স্বেচ্ছাসেবী কর্মকাণ্ডের জন্য প্রতি বছর সংস্থাটিতে গড়ে ৪৫ কোটি ডলার অনুদান দিয়ে থাকে দেশটি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর