× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার

রাকুলের প্রশ্ন

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক | ১২ জুলাই ২০২০, রবিবার, ৭:২৯

ভারতে বিবাহ বিচ্ছেদের হার দিন দিন কেবল ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছে। এর নেপথ্যের কারণ হিসেবে বেশকিছু বিষয় সামনে নিয়ে আসা হচ্ছে। সাধারণের বিচ্ছেদ নিয়ে তেমন একটা আলোচনা না হলেও তারকাদের বিচ্ছেদ ঘিরে নানা মুখরোচক গল্প শোনা যায়। তবে চলতি প্রজন্মের বলিউড অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিং প্রেম, ভালোবাসা ও বিবাহপ্রথার প্রতি সম্পূর্ণ আস্থাশীল। লোকে একে কেন ‘চাপ’ হিসেবে  নেয়, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। সম্প্রতি নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বলেন রাকুল। তিনি বলেন, ব্যক্তি হিসেবে আমি বদলেছি। আমি যা ছিলাম, তা এখন আমি নই।
আমার কাছে ভালোবাসার অর্থ বাবা-মায়ের মধ্যে আমি যা দেখি। আমি একেবারেই বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠান ও ভালোবাসায় বিশ্বাস করি। আমার মনে হয় এগুলো সুন্দর। মানুষ কেন এটিকে চাপ বলে মনে করে, তা বুঝতে পারি না। আপনি যখন কাউকে ভালোবাসেন, আপনি সমস্ত হৃদয় দিয়ে ভালোবাসেন। আমি নিজেও এ রকমের মানুষ। একজন পুরুষের মধ্যে তিনি কোন কোন গুণাবলী খুঁজে ফেরেন, সেটিও জানাতে ভোলেননি রাকুল। তিনি বলেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, ছেলেটিকে লম্বা হতে হবে। এমনকি পাহাড়ে দাঁড়িয়েও আমি যাতে তাকে দেখতে পারি। দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ গুণটি হচ্ছে, তাকে বুদ্ধিমান হতে হবে। আর সর্বশেষ তার জীবনে কিছু লক্ষ্য থাকতে হবে। নিজেকে সব সময়ই অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চেয়েছেন বলেও জানান রাকুল। বলেন, আমি সব সময় অভিনেত্রী হতে চেয়েছি। ১৮ বছর বয়সে মডেলিংয়ের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করি। অবশেষে প্রথম চলচ্চিত্রটি আমি হাতখরচের জন্য করি এবং অনেকের নজরে আসি। তবে পড়াশোনাকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন রাকুল। আর এটি করতে গিয়ে বেশ কিছু চলচ্চিত্রের কাজ হাতছাড়া হয়েছে বলে জানান তিনি। এখন অবশ্য তার অগ্রাধিকারের প্রথম স্থানেই রয়েছে চলচ্চিত্র। এর পরের স্থানটি ফিটনেস আর তৃতীয় স্থান খাদ্য। বিষয়টি একটি অনুষ্ঠানে নিজেই জানিয়েছিলেন রাকুল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর