× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার

পানির নিচে কালনা ফেরির পন্টুন, ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

এক্সক্লুসিভ

আসাদুজ্জামান বাবুল, গোপালগঞ্জ থেকে | ২৯ জুলাই ২০২০, বুধবার, ৮:১০

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মধুমতী নদীর পানি অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় তলিয়ে গেছে কালনা ফেরিঘাটের দু’-পাড়ের পন্টুনের গ্যাংওয়ে। ফলে, যানবাহন ও যাত্রী পরিবহনে চরম দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। ঘাট কর্তৃপক্ষ কোনোভাবে জোড়াতালি দিয়ে যানবাহন ও লোকজনের পারাপার স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছেন। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ প্রবেশদ্বার গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর ভাটিয়াপাড়া মোডের গোলচত্বর হয়ে কালনা ফেরিঘাট। পরিবহন চালকরা প্রতিদিন এ ঘাট দিয়ে বেনাপোলস্থল বন্দর, খুলনা, বাগেরহাট, নড়াইল, যশোর, মাগুরা, ঝিনাইদাহসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের নানান জেলায় চলাচল করে থাকেন। প্রতিদিন এ ঘাট দিয়ে শ’ শ’ যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, পিকআপ, মাইক্রোবাস, নছিমনসহ অন্যান্য যানবাহন পারাপার হয়ে থাকে। গুরুত্বপূর্ণ ঘাট হওয়া সত্ত্বেও ঘাটটির উন্নয়নে তেমন একটা নজর নেই কর্তৃপক্ষের। শংকরপাশা গ্রামের উথান সিকদার বলেন, মধুমতি নদীতে পানি বুদ্ধির কারণে নদীর দু’পাড়ের গ্যাংওয়েগুলো পানিতে তলিয়ে গেছে।
এতে যানবাহন পারাপারে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। লোকজন পার হতে পানি ঝাঁপিয়ে খেয়ায় উঠছেন। দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার প্রয়োজন। ঘাট ইজারাদার মো. মঞ্জুর হাসান বলেন, নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় ফেরিঘাটের পন্টুনের দুটি গ্যাংওয়ে তলিয়ে গেছে। নদীতে ভাটার সময় কিছুটা দুর্ভোগ কমলেও জোয়ারের সময় অনেক গাড়ির ইঞ্জিনে পানি ঢুকে পড়ছে। ফলে পারাপারে দীর্ঘ সময় লাগছে। এ কারণে ঘাট পারাপারে যাত্রী সাধারণকে দীর্ঘসময় অপেক্ষা করতে হয়। চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। গোপালগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী শাকিরুল ইসলাম বলেন, মধুমতি নদীতে পানি বেড়ে যাওয়ায় জোয়ারের সময় ঘাটে সমস্যা হচ্ছে। বিষয়টি দেখে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর