× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার
আলাপন

সেই টিমওয়ার্ক এখন নেই - মনির খান

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ৯:৩৬

প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস পুরো পৃথিবীতে স্থবিরতা এনে দিয়েছে। ঘরবন্দি হয়ে যায় মানুষ। এই ভাইরাসের থাবা এখনও চলমান থাকলেও সবাই স্বাভাবিক জীবন যাপনের চেষ্টা করছেন। তেমনি শিল্পাঙ্গনের মানুষরাও কাজে মনোনিবেশ করেছেন। করোনার কারণে প্রায় ৫ মাস ঘরবন্দি ছিলেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মনির খান। এ সময়টা গাজীপুরে অবস্থান করেছেন তিনি। কিন্তু সারাক্ষণই মন পুড়েছে পরিবার পরিজনের জন্য। রোজার ঈদে নিজ গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহে যেতে পারেননি মনির খান।
যে কারণে তার মা নাকি অভিমানও করেছেন। সেই গল্পই জানালেন এ শিল্পী।  মনির খান বলেন, করোনার কারণে পাঁচমাস গাজীপুরে বাসায় ছিলাম। যে কারণে গত রোজার ঈদেও বাড়ি যেতে পারিনি। মা খুব অভিমান করেছেন৷ এবার ঈদে বাড়ি গিয়েছিলাম। কোরবানির ঈদ নিজের গ্রামে করতে পেরে বেশ ফুরফুরে মনির খান। পরিবারের মানুষগুলোকে কাছে পেয়েছেন তিনি। দারুণ কিছু সময়ও কেটেছে তার। এ শিল্পী বরাবরই বন্ধু পাগল। বন্ধুদের সঙ্গেই বাইরের সময়টা বেশি পার করেন। আর ঈদের সময় হলেতো কথাই নেই! মনির খান বলেন, আমি বন্ধুপ্রিয় মানুষ। বন্ধুদের সঙ্গে অনেক স্মৃতি রয়েছে। ঈদগাহে গিয়ে একসঙ্গে নামাজ পরা, কোলাকুলি করা, কোলাকুলি করতে গিয়ে পাঞ্জাবির পকেট মেরে দেওয়া। এগুলো এখনও হয় বন্ধুদের সঙ্গে। মনির খানের প্রথম অ্যালবাম প্রায় ২৪ বছর আগে প্রকাশ হয়েছিল। ‘তোমার কোনো দোষ নেই’ শিরোনামের অ্যালবামটি বাজারে আসার সঙ্গে সঙ্গেই হিট। নিজের চোখের সামনেই চারশটি ক্যাসেট বিক্রি হতে দেখেছেন তিনি। এছাড়া সারাদেশে ওই অ্যালবামেই তৈরি হয় তার অগনিত শ্রোতা।  বর্তমানে পরিস্থিতি অনেকটা পরিবর্তন হয়েছে। গানের দুনিয়া ঘটেছে অনেক শিল্পীর আগমণ।  এ সময়ের সংগীত নিয়ে মনির খান বলেন, অনেকেই বলেন এগিয়ে যাচ্ছি আমরা। আমি বলবো পিছিয়ে যাছি। ধরুন, সংগীতের যে আমেজ ছিল ঈদকেন্দ্রীক, পূজাকেন্দ্রীক, পহেলা বৈশাখ কেন্দ্রীক। এটা এখন নেই। আগে স্টুডিওতে বসে সুরকার, গীতিকার, শিল্পী একসঙ্গে কাজ করতো। সেই টিমওয়ার্ক এখন নেই। এখন ঘরে বসেই কাজ হচ্ছে। গান এখন অনলাইনে মুক্তি পাচ্ছে, অনলাইনে গাওয়া হচ্ছে। সব এখন অদৃশ্য হয়ে গেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর