× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২ অক্টোবর ২০২০, শুক্রবার

মেঘনা ভাঙ্গনরোধের দাবিতে কমলনগরে মানববন্ধন

বাংলারজমিন

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি | ৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার, ২:৩২

মেঘনা নদীর ভয়াবহ ভাঙ্গন থেকে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলা রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। রোববার উপজেলা পরিষদের সামনে রামগতি-লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক সড়কে ‘কমলনগর উপজেলা নদী শাসন সংগ্রাম পরিষদ’ এ মানববন্ধনের আয়োজন করে। সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ঘণ্টাব্যাপি মানববন্ধনে এলাকার জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিক-সামাজিক নেতা ও শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজন অংশ নেন।
এতে বক্তব্য রাখেন কমলনগর উপজেলা নদী শাসন সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুল মোতালেব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ওমর ফারক সাগর, চরফলকন ইউপি চেয়ারম্যান হাজী হারুনুর রশিদ, পাটারিরহাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রাশেদ বিল্লাহ আলমগীর, উপজেলা নদী শাসন সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব ও কমলনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি এমএ মজিদ, যুগ্ম আহ্বায়ক ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইউছুফ আলী মিঠু, ইব্রাহিম খলিল, সাহাব উদ্দিন রনি, সাহাব উদ্দিন চৌধূরী, মোস্তাফিজুর রহমান হাওলাদার, মিরাজ হোসেন শান্ত, রাকিব হোসেন লোটাস প্রমূখ। এ ছাড়াও মানববন্ধনে প্রত্যাশা, হাজিরহাট একাদশ ক্লাব, পাটারিরহাট একাদশ ক্লাবসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন একাত্মতা প্রকাশ করে অংশ নিয়েছেন।
এ সময় বক্তারা বলেন, কমলনগর উপজেলার চরকালকিনি, সাহেবেরহাট, চরফলকন, পাটারিরহাটসহ কয়েকটি এলাকায় মেঘনার ভয়াবহ ভাঙন দীর্ঘ দিনের। ভাঙনের মুখে পড়ে ইতিমধ্যে সরকারি-বেসকারি বিভিন্ন স্থাপনাসহ বিস্তীর্ণ এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙন অব্যাহত থাকায় মারাত্মক হুমকির মধ্যে পড়েছে মতিরহাট, নতুন কাদির পন্ডিতেরহাট, নাসিরগঞ্জ, চৌধুরী বাজার,  লুধুয়াবাজার, চরফলকন ইউপি কমপ্লেক্সে, চরজগবন্ধু এটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ গুরুত্বপূর্ণ অনেক স্থাপনা। ভাঙন প্রতিরোধে এখনই যথাযথ উদ্যোগ না নেয়া হলে অচিরেই এগুলো নদীতে হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
যে কারণে তারা ভাঙন রোধে মেঘনার মাঝখানের ডেগাচার, ডুবচর ডেজিং এর মাধ্যমে খনন করে নদী গতিপথ পরিবর্তন এবং টেকসই বাঁধ দেয়ার জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সরকারের প্রতি দাবি জানান। পরে একই দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোবারক হোসেনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেয়া হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর