× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

চীনের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় শুধু দরিদ্র জনগোষ্ঠী

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার, ৭:৫২

প্রতি বছর প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের অর্থনৈতিক ক্ষতির শিকার হয় চীন। একইসঙ্গে প্রাণ হারান শত শত মানুষও। তবে এতে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় দেশটির দরিদ্র জনগোষ্ঠী। কমিউনিস্ট রাষ্ট্র হওয়া সত্ত্বেও সেখানে দেখা যায় বিস্ময়কর সামাজিক বৈষম্য। এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গণমাধ্যম ব্লুমবার্গ। এতে বলা হয়, এ বছর চীনে যে ভয়াবহ বন্যা দেখা গেছে তাতে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশটির আনহুই প্রদেশ। তবে এই অঞ্চলে বন্যা হওয়ার মতো কোনো বৃষ্টিপাতই হয়নি। এই অঞ্চলকে বন্যার পানি নামিয়ে দেয়ার জন্য ব্যবহার করে থাকে চীন।
গত কয়েক দশক ধরেই যখনই চীনের কোনো শিল্পোন্নত এলাকায় বন্যা হয় তখনই সেখান থেকে পানি অপসারণে তৎপর হয়ে পড়ে দেশটির সরকার। এ পানি সরিয়ে ফেলা হয় কৃষিভিত্তিক অঞ্চলগুলোতে। ফলে বর্ষাকাল এলেই বাঁধ খুলে দেয়া একটি সাধারণ ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে চীনে। এই পানি নেমে গিয়ে গ্রামগুলো ডুবিয়ে দেয় এবং জনজীবন বিপন্ন করে তোলে। চীন সরকার সবকিছু হিসাব করে জিডিপি দিয়ে। শিল্পোন্নত এলাকায় বন্যা থাকলে জিডিপি বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সে তুলনায় গ্রামাঞ্চলগুলোর জিডিপিতে প্রভাব কমই থাকে। গত মাসে আনহুই প্রদেশের মেংগুয়া বাঁধ ছেড়ে দেয় চীনা কর্তৃপক্ষ। এতে প্রায় ৩৭৫ মিলিয়ন কিউবিক মিটার পানি ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশের গ্রামগুলোতে। হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়ে যায়। শত শত পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে। চীন সরকার দেশটিতে সবসময় বলে আসছে, বড় অর্জনের জন্য ছোট ছোট ছাড় দিতে হয়। তারই অংশ হিসেবে, রাষ্ট্রীয় বৃহৎ স্বার্থে প্রতি বছর ক্ষতিগ্রস্ত হতে হচ্ছে দরিদ্র অঞ্চলগুলোর মানুষদের। তবে ক্ষতির শিকার হওয়া মানুষদের জন্য এটি বড় ত্যাগ। দেশটির গ্রামগুলো পুরোপুরি কৃষিনির্ভর। তাদের ৪০ থেকে ৭০ শতাংশ ফসল নষ্ট হয়ে গেলে বেঁচে থাকাই কঠিন হয়ে যায় তাদের জন্য।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর