× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

রাজস্ব আদায়ে অভিযান পরিচালনা করবে ডিএনসিসি

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার, ৩:৫৬

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, আগামী পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে রাজস্ব আদায়ের জন্য আমরা চিরুনি অভিযান শুরু করতে যাচ্ছি। হোল্ডিং ট্যাক্স এর পরিধি বাড়ানোর জন্য আমরা এ অভিযান পরিচালনা করব। অনেক বাড়ি হয়তো দশতলা কিন্তু হোল্ডিং ট্যাক্স দিচ্ছেন দোতলা পর্যন্ত। তিনি বলেন, হাল্ডিং ট্যাক্স এর পরিমাণ বাড়বে না, তবে হোল্ডিং ট্যাক্স এর পরিধি বাড়ানো হবে।  বুধবার দুপুরে রাজধানীর উত্তরা কমিউনিটি সেন্টারে এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। কোরবানি পশুর বর্জ্য অপসারণ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে মেয়র বলেন, আমাদের পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা, মশক নিধন কর্মীরা এই করোনাভাইরাসের মধ্যেও জীবনবাজি রেখে তাদের দায়িত্ব পালন করছেন। এই শহরকে পরিষ্কার করছেন। আজ আমরা প্রত্যেকটি ওয়ার্ডের পরিচ্ছন্নতাকর্মী ও মশক নিধন কর্মীদের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়েছি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান খেটে খাওয়া মানুষদের জন্য দেশ স্বাধীন করেছেন।
আমি খেটে খাওয়া মানুষদের সাথে সব সময় থাকতে চাই। আতিক বলেন, আমি ২০১৯ সালে যখন মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলাম তখন প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, যে পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা শহরকে পরিষ্কার রাখে, তাদের জন্য একটি ভালো বাসস্থান নির্মাণ করা প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আলোকে গাবতলীতে ২২১ কোটি টাকা ব্যয়ে চারটি ১৫ তলা বিশিষ্ট আবাসিক ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। ফলে ৪৮৪টি পরিবারের বাসস্থান হবে। ২০২১ সালে এ সকল আবাসিক ভবনের নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হবে। এ সকল ভবনের পাশাপাশি পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের সন্তানদের জন্য স্কুল এবং উপসনালয় তৈরি করা হচ্ছে। জনগণের ভোটে আমরা নির্বাচিত হয়েছি জনগণের পাশে থাকবো, এটাই আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। এসময় প্রধানঅতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবদুল হাই, সচিব রবীন্দ্রশ্রী বড়ুয়া, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এম সাইদুর রহমান, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন প্রমুখ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kaiser Chy
১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার, ৪:৫২

221 krores taka spent to house 484 family of cleaning workers, per family house cost 45 lac and 66 thousand. Wow!!!!!!!!!!!!!!!!! Please give me cleaning worker job , at least will have an apartment in 15 story building cost 45 lacs LOL This mayor calculated this ???????? where the money comes from Tax payers pocket and 70% of the money will go corrupted politician and officers pocket he is talking about collecting more tax. Collect Tax honestly , you can collect 50% more tax than current collection and at the same time you can reduce 50% tax rate to the current rate, Just need honesty , honesty , honesty . Unfortunately that is scares is our beloved country . Make me tax collector for two years , I will show you how this plan is very possible to execute.

অন্যান্য খবর